অন্তত একটা তথাস্তু – রঘুনাথ চট্টোপাধ্যায়

[post-views]

আমার জন্ম-ঠিকানার মাটি এক্সরে রিপোর্ট বলছে :
আমার ললাটে জ্বলছে জলধারণ অক্ষমতার তিলক
অর্থাৎ আমি বেলে মাটির নড়বড়ে সন্তান
পর্যাপ্ত তৃষ্ণা ,অনুর্ব্বরতা ও অপুষ্টি জন্মগত শ্বাসকষ্ট….
আজও আমার বাড়িতে তাকিয়ে আছে হাঁসবাড়ি
হাঁস পুষে সগৌরবে ডিমও খেলাম ,হাঁসও খেলাম
অথচ এ যাবৎ কিঞ্চিৎমাত্র হংস চিনলামনা
অষ্টপ্রহর অঙ্কে ডুবে থেকেও চিনলামনা যোগ
যে যোগে স্পষ্ট হয় পরম যোগাযোগ
নির্বিঘ্নতায় সুরক্ষিত থাকে মন্দির ও ধ্যানপর্ব
পর্যাপ্ত তুষ্টিতে ঈশ্বর ছুঁঁড়ে দেন মাত্রাধিক তথাস্তু…
অকারণে ভুল ছন্দে বাস্তু ঘুঘুর মত হেঁটে গেলাম
আবার লুকোচুরি সন্ধিক্ষণে ঘুঘু ধরা ফাঁদও পাতলাম
ষোলোয়ানা জিততে গিয়ে লিখেছি আঠারোয়ানা গো-হারার গল্প
তথাপি চূড়ান্ত হিসেবকক্ষে ঢুকে একটিবারের জন্যেও
বাজাতে পারলামনা আত্ম-সম‌র্পণের খঞ্জনি
ভাইরে, এই পবিত্র-কঠিন প্রচেষ্টায় শান্ দিতে গিয়ে
শ্রবণেন্দ্রিয় ও দর্শনেন্দ্রিয়কে কোনরকমে  কব্জা করলেও
মন ব্যাটাকে টেনে-হিঁচরে আনতেই পারিনি
আলখাল্লাপুরের নষ্ট বাউলের আখড়া থেকে
স্বভাবতই নিজের দেশটাই চির বিদেশ থেকে গেলো
ঘুরে ফিরে আর চেনা হলোনা ……
ভোগেই ভোগান্তি, অসুখ অশান্তির বীজতলা
এই বিষকথা জেনেও নিজেকে শুধুই বাজেয়াপ্ত করলাম
আত্ম-ঝুলিতে ঘটি বাজাচ্ছে অনন্ত খা খা —
অতএব, কোন মুখে আর পরজন্মে রাখি বিশ্বাস?
পারের কড়ি বলতে আমার জিম্মায় হাসছে
কাঁচা-পাকা অফুরন্ত কবিতার বিচিত্র সমাহার
যেখানে বহুভাবে নতজানু হয়েছি মধ্যরাতে
শব্দে শব্দে ছুঁতে চেয়েছি ঈশ্বরের ঠিকানা
স্বস্তি বলতে, এইটুকুই আমার বিশুদ্ধ আচমন
এখন অপলক তাকিয়ে আছি ঠেলা প্রমোশনের দিকে…..
একমুঠো না হোক, অন্তত একটা তথাস্তু…..।।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top