আঁধারিয়া উপবন

আঁধারিয়া উপবন
রাজ্জাক রাজ

রাতের কাননে পুষ্পনি সৌরভে অঙ্গ দোলে
জলসায় নূপুরের তান
আঁধারের অলি মাধ্বী সুধায় এসো।

ঈশ্বরের নিষিদ্ধ কাননে এক বিনোদী বাজার
এসো বিরহী যাতনা মনে সুখানন্দে।

ধনাশ্বর সুখ খোঁজ আঁধারে
এ পল্লী সে সুখ পিয়ারী তোমার প্রস্ফুটিত কানন।

তুমি অলি হয়ে ফুলের সন্ধান কর
এ পল্লী সে গোলাপি বাগ পুষ্পাঙ্গের ঘ্রাণে মাতাল হও!

নিষিদ্ধ কানন ডাকে
আলোর ফোয়ারায় গোলাপি পাপড়ি মেলে
এসো ভ্রমর মাধ্বী লও!
আঁধারে একান্তে অলি পুষ্পের মিলনে
হারিয়ে যাও পৃথ্বী স্বর্গে নরক সুরা পানে।

তুমি সুখ পাবে মধু আহরণে
এ নিষিদ্ধ কানন সুখ দেবে গোলাপ নির্যাস বিলে।

এখানে ধর্ম নাই! ধার্মিক নাই!
এখানে গোলাপ কড়িতে বিকি ক্ষণকানন্দে,

ঈশ্বর গোলাপির পাপড়ি চুমে কবিতার ছন্দ তোলে
ভালোবাসা আর ভালোবাসায়…
শুধু সুরা পান ;গোলাপি অঙ্গের ঘ্রাণে মাতাল।

এখনে বিরহ দূর একাচ্ছন্ন বিনোদনে
আঁধার কাননে গোলাপির ঠোঁট চুমে নাও!
ধর্মের নরক টিকেট।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *