ঠিকানার বাইরে যাবো – গোবিন্দলাল হালদার

[post-views]

বড় শিল্পীর আঁকা এই সৌন্দর্যের  ঘর বাড়িতে রাখা
সকল পোট্রের্ট চোখের আয়নায় আমি না দেখেই
ঠিকানার বাইরে যাবো ; এত বড় দুঃখ বুকে পুষি
কী করে।
এই নদী এবং পৃথিবীর সকল  নদীর জলধারায় রচিত কবিতা পাঠ না করে ; জলের স্বাদ আস্বাদন না করে আমি কী করে অতৃপ্তির বাসনা বুকে পুষে ঠিকানার বাইরে যাবো ; এত বড় দূঃখ বলি কী করে।
এই আকাশ চাঁদ সূর্য তারা নক্ষত্র আলোর বিচ্ছুরণ
ভেসে বেড়ানো মেঘ সংসার কথা  ঝড় বৃষ্টির কথা
রোদ ঝলমল দিনের কথা  টাপুর টুপুর বৃষ্টির কথা
বুক থেকে ঝেরে ফেলে দিয়ে ঠিকানার বাইরে যাবো ;
এই অনুতাপ সহ্য করি কী করে।
এই পথ সবুজ ঘাস মাঠের ফসল উচ্চ শিরের গাছ গুল্মলতা ফুলের শ্রীরুপ গন্ধ মৌমাছিদের গুণগুন
পাখিদের কিচিরমিচির ভালো লাগা ডাহুকের ডাক
এত সব আবেদন রেখে ঠিকানার বাইরে যাবো;  এই
মায়া ভুলি কী করে।
এত সব পর্যটনের উঠোন নয়নাভিরাম দৃশ্য পাথরের
পরিবার ঝরনার গান পাহাড়ী গাছ ফুলফল চা বাগান আদিবাসী জীবন মসজিদ মন্দির গীর্জা প্যাগোডা ভজনালয় তীর্থ ক্ষেত্র প্রকৃতির কোল এত সব আকাঙ্খা অবহেলা করে কী করে ঠিকানার বাইরে যাবো ; এই প্রতিবেদন লিখে যাই কী করে।
  –
এই সব অট্রালিকা সুউচ্চ টাওয়ার আধুনিক মনলোভা স্হাপনা মিউজিয়াম  জ্ঞানের সংরক্ষিত সমষ্টি পৃথিবীর নয়নাভিরাম অপূর্ব দৃশ্য পৌরাণিক সব নিদর্শন সাগর সৈকত মঙ্গলে ঘরবাড়ি না দেখে না জেনে কী করে ঠিকানার বাইরে যাবো ; এই অভিলাস আমি অপূর্ণ  রাখি কী করে।
এই ঠিকানার সূত্র আত্মীয়তার শেকড় মায়ার গেঁড়ো
ছিঁড়ে ফেলে উপাধির অহংকার মুছে ফেলে সনাতন বীজের চলমান স্বীকৃতি উপড়ে দিয়ে এত সব যোগাযোগ অস্বীকার করে আমি কী করে ঠিকানার  বাইরে  যাবো  ; এই দায়বোধে লবন ছিটাই কী করে।
চরপাড়া,বেড়া,পাবনা
ঠিকানা : চরপাড়া, বেড়া,পাবনা।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top