ডিএনএ গল্পকার – অভিষেক সাহা

” দেখ নির্মল, তোকে একটা কথা বলি কিছু মনে করিস না, তোর একটা ডিএনএ টেস্ট করিয়ে নিস !” বেশ গম্ভীরভাবে নির্মলকে কথাগুলো বলল ওর ছোটবেলার বন্ধু তমাল।
” হঠাৎ একথা বলছিস কেন? আমি খামোখা ডিএনএ টেস্ট করাতে যাব কেন ?” অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করল নির্মল।
” না মানে, আমি তো তোকে সেই নেংটু বেলা থেকে চিনি। এখন আমাদের পঁয়ত্রিশ বছর বয়স হয়ে গেল, আমি তো তোকে শুধু ডাল-ডালে চিনি না, পাতায় পাতায়, শিরায়, উপশিরায় চিনি। সত্যি বলতে কী, তোর মত ভালো মানুষ আমি  এখন পর্যন্ত আর একজনও দেখিনি। ছোটবেলা থেকেই তুই পড়াশোনায় ভালো, মাঝেমাঝে ফার্স্ট- সেকেন্ডও হয়েছিস। তাছাড়া কত সুন্দর ছবি আঁকতিস, ক্রিকেটও খেলতিস। কিন্তু এসব নিয়ে তোকে কোনো দিন গর্ব করতে শুনিনি। বড় হয়েও একই নম্র- ভদ্র আছিস। কেউ কেউ একটা কেরানির চাকরি করে নিজেকে হনু ভাবে। সেখানে তুই সরকারি হাইস্কুল টিচার। কিন্তু এটা নিয়েও কোনদিন হামবড়া ভাব দেখাস না ।” একটু থামল তমাল।
” সে তো সব বুঝলাম, কিন্তু এর সাথে ডিএনএ টেস্টের সম্পর্ক কী ?” প্রশ্ন করল নির্মল।
” উফ্, এখনও কথা শেষ হয়নি, পুরোটা শোন। তোর বৌ চুমকিও বেশ লক্ষ্মীমন্ত। ঘরে তোর সঙ্গে যাই করুক, বাইরে কিন্তু খুব শান্ত। জানিস তো, স্কুলে থাকাকালীন আমার বাবা আমাকে তোর উদাহরণ দিয়ে বলতেন নির্মলের মত হ। আর এখন আমার বৌকে তোর বৌ-এর উদাহরণ দেয়…” এবার তমালকে থামিয়ে নির্মল কিছুটা বিরক্ত হয়ে জানতে চাইল ” তুই কী শুরু করলি বলত সকাল সকাল। কী বলতে চাস সোজাসুজি বল না ভাই, আর নেওয়া যাচ্ছে না ।”
” তোর ছেলেটা এমন হল কেন রে?” হতাশা মেশানো গলায়  তমাল জানতে চাইল।
” মানে ! কী বলতে চাইছিস ?” নির্মল বিস্ফারিত চোখে বলল।
” তুই জানিস তোর ছেলে কী করে? সবে তো ক্লাস এইট, এখনই এতো। কী স্কুলে, কী পাড়ায়।  সবার সাথে মারামারি করে , ঝগড়া করে, টিচার না থাকলে বেঞ্চের উপরও উঠে পড়ে। খেলতে গিয়ে রোজ কারুর না কারুর  সাথে হয় মুখোমুখি ,নয়ত হাতাহাতি করে। চিৎকার করে কথা বলে। কারুর কথা শোনে না, শুধু নিজে  বলবে। আমার ছেলেটা তো ভয়ে ওর ছায়ার সামনেও যায় না। তোরা দু’জনে এত শান্ত, আর তোর ছেলেটা এত দুর্দান্ত তো, তাই ডিএনএ টেস্টের কথা বলছিলাম।” তমাল মন খুলে সব কথা বলল।
 মুচকি হেসে শান্তভাবে নির্মল বলল ” দেখ তমাল, এই যুগে শান্ত- ভদ্র লোকেদের মানুষ বোকা ভাবে। দুর্দান্তদের জয়জয়কার। দুর্দান্ত না হলে বড় কিছুর কথা বাদ দে, মিডিয়ার টক শোতেও কেউ চট করে ডাকবে না !”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top