পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে বহু যুগ আগে হারিয়ে যাওয়া মহাকাশযান – সিদ্ধার্থ সিংহ

 [post-views]

 

 [printfriendly]

 

আজ থেকে বহু বছর আগে, ১৯৬৬ সালে নাসার বিজ্ঞানীরা সফল ভাবে উ‍ৎক্ষেপণ করেছিল ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডার।

কিন্তু মহাকাশে পৌঁছনোর পরে আর শেষ রক্ষা হয়নি। চাঁদের বুকেই ভেঙে পড়েছিল রকেটটি। চাঁদের কক্ষপথে পাক খাওয়ার পাশাপাশি সূর্যকেও প্রদক্ষিণ করেছিল সেটা।

তার পরে হঠাৎই এক সময় অদৃশ্য হয়ে গিয়েছিল। বিজ্ঞানীরা হাজার তল্লাশি চালিয়েও হদিশ পাননি ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডারটির।

অবশেষে এত বছর পরে হারিয়ে যাওয়া সেই মহাকাশযানটিরই সন্ধান পেয়েছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। জানা গেছে, অতি দ্রুত গতিতে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে সেটা।

নাসার গ্রহাণু বিশেষজ্ঞ পল চোডাস এমনই দাবি করছেন। ফলে হারিয়ে যাওয়া মহাকাশযানের ফের পৃথিবীতে ফিরে আসার ঘটনায় রীতিমত উচ্ছ্বসিত মার্কিন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

কিন্তু কী ভাবে জানা গেল অত বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডারটিই ফিরে আসছে পৃথিবীর বুকে? আসলে নাসার বিজ্ঞানীরা মহাকাশে চোখ রেখে আচমকাই এক বিশাল প্রস্তরখণ্ড পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসতে দেখেন।

প্রথমে তাঁরা মনে করেছিলেন, ওটা হয়তো কোনও গ্রহাণু। কিন্তু ওটা যত কাছে এগিয়ে আসতে থাকে, ততই বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত হন যে, ওটা আসলে কোনও গ্রহাণু নয়।

ওটা যে কোনও গ্রহাণু নয়,‌‌ কিছু দিন আগে সেটাই নিশ্চিত করেন বিশিষ্ট গ্রহাণু বিজ্ঞানী পল চোডাস। তিনি বলেন, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা প্রস্তরখণ্ডের মতো দেখতে বস্তুটি আসলে অনেক কাল আগে চন্দ্রাভিযানের সময় হারিয়ে যাওয়া রকেট ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডার।

তাঁর কথায়, ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডারটি যত পৃথিবীর কাছে এগিয়ে আসবে, ততই তার সম্পর্কে যাবতীয় ‌খুঁটিনাটি তথ্য আমাদের কাছে স্পষ্ট হবে।

গ্রহাণু যেহেতু নিরেট পাথর আর রকেটের শরীরের ভেতরটা ফাঁপা এবং বিরাট ক্যানের মতো, ফলে গ্রহাণুদের চেয়ে তার চলন অনেকটাই আলাদা। সে সব বিবেচনা করেই আমরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি।

তবে আমাদের এখন দেখতে হবে, তার কক্ষপথে সূর্যের আলোর তেজস্ক্রিয়তা ও তাপ কতটা প্রভাব ফেলছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, আগামী নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করবে ওই ব্যর্থ মহাকাশযানটি।

মাস চারেক বাদে, অর্থা‍ৎ আগামী বছরের মার্চ মাসের পরে সেটি পৃথিবী ছেড়ে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে শুরু করবে। তবে পৃথিবীর বুকে ‘সার্ভেয়ার-২’ ল্যান্ডারটির আছড়ে পড়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই।

সিদ্ধার্থ সিংহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top