বিমর্ষ – এম জাকারিয়া আহমেদ

[post-views]

একটা সময় ছিল আমার
যখন ফুল না ফুটলেও
বসন্ত লেগে থাকতো,
আমার  স্বপ্নের পৃথিবী জুড়ে !
তখন কাক ডাকলেও শুনতাম
যেন কোকিল ডাকছে !
সহসা আমিও গোলক ধাঁধায়
পড়তাম নিজেকে নিয়ে।
প্রায়শই হারিয়ে যেতাম
অজানা ভাবনায়,
কখনো টিকটিকির ডাকে
ঘোর কাটতো, কখনোবা
মায়ের স্পর্শে, আবার হঠাৎ
কারো আগমনে !
তখন একটা হাসি দিয়ে
বলতাম কিছুনা !
তখন তাদের চাহনি থাকতো
প্রশ্নবোধক ? যা আমাকে
লজ্জাময় হাসিতে লাল করে দিতো !
প্রভাতে ভিরভির করতাম একাএকা
দুঁপুরে হতো প্রকৃতি দেখা,
সাঁঝের বেলায় কেঁদারা টেনে
বসে লিখতাম কবিতা।
বেশ চলছিল, হঠাৎ যে কি হলো ?
এখনো বসন্তে ফুল ফুটে,
কোকিল ডাকে, শ্রাবনের ভীড়ে
হারিয়ে যায় শরৎ,
কিন্তু ; আমি টেরও পাইনা !
হাহাহা অবাক তাইনা ?
এরও একটা কারন আছে !
যার জন্য ফুল না ফুটলেও
মনে হতো বসন্ত, কাক ডাকলে
মনে হতো কোকিল !
রক্ত ঝরলেও মনে হতো ঘাম,
মশার কামড় মনে হতো চুলকানি !
এক চিলতে হাসি আর এক পলক চাহনি,
চড়াতো আমায় রূপকথার রথে !
আজ সব উল্টে গেছে !
কারন ; শুধু কাছে নেই তুমি,
তাই আজ এতটা বিমর্ষ আমি !!!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top