বোনের এক বর – সিদ্ধার্থ সিংহ

– 

[post-views]

বাংলাদেশের সাভারের তেতুঁলজোড়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড মুসলিম পাড়া এলাকায় একে একে তিন বোনকে বিয়ে করেছেন সোহরাব হোসেন নামে এক যুবক। পেশায় তিনি একজন নাপিত।
খুলনা জেলার কয়রা থানার বাগমারা এলাকার আব্দুর রহমান সরদারের ছেলে এই সোহরাব ৪ বছর আগে প্রথমে বিয়ে করেন লিমা আক্তারকে (২১)। বিয়ের ১ বছর পরে প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে তার বড় বোনকে (২২) বিয়ে করেন। তিন বছর খুব সুন্দর ভাবেই সাংসারিক জীবন কাটান দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে।
গত ৩ জানুয়ারি তিনি তাঁর শ্যালিকা অর্থাৎ প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রীর নিজের ছোট বোনকে (১৮) বিয়ে করেন। এই তৃতীয় বিয়েটি করে তিনি আবার নতুন করে সংসার পাতেন।
সোহরাবের দ্বিতীয় স্ত্রী স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। সেই কারখানাতেই কাজ পাওয়ার জন্য বড় বোনকে ধরেছিলেন এই ছোট বোনটি। সে জন্য মাত্র তিন মাস আগে বড় বোনের বাড়িতে তিনি আসেন।
নিজে যে কারখানায় কাজ করেন, সেই কারখানাতেই ছোট বোনের জন্য একটি কাজের ব্যবস্থা করে দেন বড় বোনই।
একই কারখানায় চাকরি পেয়ে দিদি-জামাইবাবুর সঙ্গে একই বাড়িতে থাকতে শুরু করেন ছোট বোন।
অল্প কিছু দিন আগে ছোট বোন শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। বমি হতে থাকে ঘন ঘন। চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতে গেলে প্রাথমিক পরীক্ষাতেই জানা যায় তিনি অন্তঃসত্ত্বা। তার পরই জামাইবাবুর সঙ্গে তাঁর অবৈধ মেলামেশার কথা স্বীকার করে নেন ছোট বোন।
বড় বোন রাতের বেলায় কাজে বেরোলেই শ্যালিকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতেন জামাইবাবু। অন্তঃসত্ত্বা ধরা পড়ার তিন দিনের মাথায় শ্যালিকাকে ঝটপট বিয়ে করে নেন সোহরাব।
এই ভাবে একে একে একই মায়ের পেটের তিন বোনের স্বামী হয়ে যান এই সোহরাব। এই তিন বোনই ছিলেন বরিশালের মেয়ে।
এ ব্যাপারে সোহরাবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার প্রথম স্ত্রী নিজেই আমাকে ছেড়ে চলে যান। সে চলে যেতেই তার বড় বোন আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। ফলে সেই প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে আমি তাকে বিয়ে করি। কিন্তু তিন বছর সংসার করেও আমরা ছিলাম নিঃসন্তান। এর পরেই আমার জীবনে আসে প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রীর ছোট বোন। শুধুমাত্র সন্তানের মুখ দেখব বলেই আমি তাকে বিয়ে করতে বাধ্য হই।
সিদ্ধার্থ সিংহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top