মধ্যপ্রদেশ থেকে মিলল সাড়ে ৬ কোটি বছর আগের সাতটি ডাইনোসরের ডিম – সিদ্ধার্থ সিংহ

সেই কোন আদিম যুগে পৃথিবীর বুকে হেঁটে বেড়াত তারা! এখন মাটি খুঁড়লে তাদের কেবল জীবাশ্মই পাওয়া যায়। তবে এই আদিম যুগের সরীসৃপেরা যে এককালে ভারতেও ছিল তার প্রমাণ মিলেছে কিছু দিন আগে।
সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশ থেকে উদ্ধার করা হল ডাইনোসরের সাতটি ডিমের জীবাশ্ম। যা দেখে অবাক গোটা বিশ্ব।
ক’দিন আগে মধ্যপ্রদেশের মণ্ডলা জেলা থেকে সেগুলো পাওয়া গেছে। গবেষকেরা দাবি করেছেন, জীবাশ্মগুলো প্রায় সাড়ে ৬ কোটি বছরের পুরনো এবং এই ডিমগুলো সম্ভবত তৃণভোজী ডাইনোসরেরই এক নতুন প্রজাতির।
ডাক্তার হরিসিং গৌর মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভুবিজ্ঞানের অধ্যাপক। তিনিই উদ্ধার করেন এই ডিমগুলো।
তিনি বলেন, ‘এ বছরের ৩০ অক্টোবর মণ্ডলা জেলার স্কুলের এক ছাত্র প্রশান্ত শ্রীবাস্তবের কথা মতো আমি একটি ওয়েবসাইটে সার্চ করি। সেখানেই প্রথম দেখি স্থানীয় এক যুবকের হাতে ওই ডিমগুলোকে।’
তিনি আরও জানান, খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, ওই ডিমগুলোর ওজন প্রায় ২ কিলো ৬০০ গ্রামের মতো আর দৈর্ঘ্যে প্রায় ৪০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত। লকডাউনের আগেই সেগুলোকে একটি ট্যাঙ্কে ভরে রাখা হয়েছিল।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনও পর্যন্ত ভারতীয় বিজ্ঞানীদের কাছে এই প্রজাতি সম্পর্কে সে রকম কোনও তথ্যই নেই।
তবে এই ডিমগুলোর জীবাশ্ম আবিষ্কারের পরে ধারণা করা হচ্ছে, এই সরীসৃপগুলো এক সময় নিশ্চয়ই ভারতের গুজরাট আর মধ্যপ্রদেশে দাপিয়ে বেড়াত।
বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস, এই নতুন আবিষ্কারটি ডাইনোসরদের বিস্তার বুঝতে আমাদের প্রভূত সাহায্য করতে পারে। এমনকী ঠিকঠাক ভাবে গবেষণা করলে তাদের বিলুপ্তি হওয়ার বহু কারণও জানা যেতে পারে।
গবেষকেরা ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, এই ডিমের জীবাশ্মগুলো ডাইনোসরের একটি নতুন প্রজাতি‌— বেকড বা সার্পড-এর অন্তর্ভুক্ত।
Siddhartha Singha

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top