শব্দগুহা – মুস্তারী বেগম

 [post-views]

একদিন পাখি হয়েছিলাম
পরিযায়ী অথবা গৃহী
একদিন পানিবাহী ও হয়েছিলাম
হংস অথবা মাস্তুল
শিতলকুচি মোড়া একটি শরীর
আবছা কুয়াশা পড়ানো একটি মূর্তি
সব সবদাহ শেষ হলে
একটি কবরের ফাটলে অবিকল তোমার মুখের মতো দুটো চোখের শরীরে প্রজাপতিদের পরাগ লেগেছিলো
আমার ময়লা ঝোলায় একটি তাসবীহ ছিলো
আর সেই রুপদস্তার পানের ঘর
যেখানে জন্মান্ধ নেশায় কবিরা বসে থাকে আমরণ তাপস্যায়।
আমার পাখিদের শরীরের উত্তাপে একদিন নবজার অক্ষর তুলোর শরীরে খোয়াব দেখেছি
একটি পরীর আর একটি আর্তনাদের।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top