সইয়ের বাজার – মুক্তি দাশ

[post-views]

স্বাক্ষর-সংগ্রহ একটি বিশ্বসমাদৃত ‘হবি’ হলেও আমাদের দেশে স্বাক্ষর-শিকারীদের প্রকৃত সংখ্যা সরকারিভাবে আজও নিরূপিত হয়নি, যদিও কেবলমাত্র আমেরিকায় এর সংখ্যা স্বচ্ছন্দে পঞ্চাশলক্ষ অতিক্রম করে গেছে।

স্বাক্ষর-শিকারীদের এবং স্বাক্ষর সংগ্রহে আগ্রহী ব্যক্তিদের উদ্দেশে একটি কথাই শুধু বলা যেতে পারে যে, ঐতিহাসিকদের মতে, ব্যাবিলনের এক বিখ্যাত ব্যবসায়ীর স্বাক্ষরই নাকি সর্বাপেক্ষা প্রাচীন। প্রায় ৩১০০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দে একটি পাথরের উপর খোদাই করা সেই ব্যবসায়ীর দুর্লভ স্বাক্ষর এখন ব্রিটিশ মিউজিয়ামের শোভাবর্ধন করছে।

এছাড়া চারহাজার বছরের পুরোনো কিছু বিশ্ববিখ্যাত ইজিপ্সিয়ানদের স্বাক্ষর একজন স্বাক্ষর-ব্যবসায়ীর মাধ্যমে বিক্রি হয়েছে প্রতিটি মাত্র একহাজার ডলারে।

স্বাক্ষর-সংগ্রহ বলতে জনবন্দিত খ্যাতনামা ব্যক্তিত্বদের সই বা সইয়ের সংগে দু’কলম লিখিত মন্তব্য জোগাড় করা। আপাতদৃষ্টিতে এর মধ্যে কোনো ঝামেলাই নেই। শুধু সুযোগ বুঝে সভাসমিতি, সম্মেলন, অনুষ্ঠান বা জলসা ইত্যাদিতে উপস্থিত জনপ্রিয় নামীদামী শিল্পী-সাহিত্যিক, অভিনেতা বা নেতাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে নিজের খাতা বা নোটবইটা একবার বাড়িয়ে ধরলেই হলো! এই হচ্ছে স্বাক্ষর-শিকারীদের স্বাক্ষর-সংগ্রহের চিরাচরিত ছবি। কিন্তু আর একধরণের মানসিকতার স্বাক্ষর-শিকারী – যারা কেবল তাদের সমসাময়িক বিখ্যাত ব্যক্তিদের স্বাক্ষর জোগাড় করেই সন্তুষ্ট হতে রাজি নন, তাদের সংগ্রহের ধারা বা পথটা বুঝি আরও বেশি আয়াসসাধ্য এবং ব্যয়সাপেক্ষ।

আসলে তথাকথিত বিদগ্ধ ব্যক্তিদের সইয়ের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট, তার প্রাচীনত্ব ও দুষ্প্রাপ্যতা এবং সর্বোপরি তার ক্রমবর্ধমান চাহিদাকে কেন্দ্র করেই নির্ধারিত হয় একটি দুর্লভ স্বাক্ষরের আন্তর্জাতিক বাজারমূল্য। স্বাক্ষর-শিকারীরা সেই আকাশচুম্বী মূল্যের বিনিময়েও নির্বিকারে কিনে নেয় সেইসব দুর্লভ সই, তাদের স্বা্ক্ষর-ভান্ডার সমৃদ্ধ করার জন্যে। এবং সেই সুবাদে আমেরিকার নিউইয়র্কে ছেচল্লিশ হাজার দুশো ডলারে বিক্রি হয়ে গিয়েছিল জাপানের একদা-সম্রাট হিরোথিও-র স্বাক্ষর।

একটি সাদামাটা কাগজে একজন কিংবদন্তী মানুষের শুধুমাত্র একটি স্বাক্ষরের আন্তর্জাতিক বাজারমূল্য একরকম, আবার কোনো গুরুত্বপূর্ণ বা রসালো মন্তব্যসহ সেই একই স্বাক্ষরের মূল্য আরেকরকম। চিঠিপত্র বা দলিল-দস্তাবেজের উপর একজন জনপ্রিয় খ্যাতিমান মানুষের সইয়ের দাম তো আকাশছোঁয়া। যেমন, একসময় তিনহাজার ডলারে বিক্রি হয়েছে ক্রিস্টোফার কলম্বাসের সই। শুধু একটি সই। কিন্তু সেই সই-ই যখন কলম্বাসেরই লেখা কোনো একটি চিঠির নিচে শোভা পেয়েছে তখন তার দামও দাঁড়িয়েছে পঁচিশহাজার ডলারে। আবার একটি সরকারি কাগজে কলম্বাসের সেই মূল্যবান স্বাক্ষর আর্থিক দিক থেকে আরও মূল্যবান হয়েছে – তখন তার দাম ঘোষিত হয়েছে পঞ্চাশহাজার ডলার।

তুলনামূলকভাবে বিশ্ববন্দিত নাট্যকার উইলিয়াম শেক্সপীয়রের সইয়ের দাম অনেক বেশি। বোধহয় তাঁর জনপ্রিয়তা অপেক্ষাকৃত বেশি বলেই। একটি দলিলের ওপর শেক্সপীয়রের একটি পূর্ণস্বাক্ষর একসময় একলক্ষ ডলারের বিনিময়ে অক্লেশে বিক্রি হয়েছে।

মুক্তি দাশ

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top