স্বপ্নভঙ্গ

স্বপ্নভঙ্গ

হয়তো আমি স্বপ্নে ছিলাম, ঘুমের ঘোরটা বেশিই ছিল।
তাই একটা অলীক সুখ ,সুখ দিত আমায় কল্পনার পরতে পরতে।
একটা গোলাপ কুঁড়ি থেকে সম্পূর্ণ হল।

না, ছিঁড়ে যায় নি, ভেঙে যায় নি, শুকিয়ে যায় নি তার ডাল;
শুধু কেউ অতি যত্নে তুলে নিয়ে গিয়ে নিবেদন করলো প্রিয় দেবতার প্রতি।
তুমি বলবে,’গোলাপ ফুলে পুজো হয় না তো! ‘
আরে পাগল, পুজো তো তুচ্ছ কথা! নাই বা হল! এ যে সমর্পণ – এ তো কোনো নিয়ম মেনে হয় না।
সমর্পণে হৃদয় চায়, ভক্তি চায়, বিশ্বাস চায়, নিয়ম হয়তো চায় না।
অন্তরের অতি অন্তর থেকে উঠে আসে সমর্পণ,
মিলে যায় উদ্দিষ্টের সাথে।
আমি তো আগে ভেবে দেখিনি এটা।

হয়তো আমি স্বপ্নে ছিলাম; তাই ভেবেছিলাম ফুলটা আমার সামনে থাকবে -আজীবন, ঠিক এখনকার মতো।
আমি তাকে তুলবার কথা ভাবিই নি,
কখনও ভাবিনি কাউকে নিবেদনের কথা,
কখনও ছুঁই নি তাকে,
মনে হত- ‘থাক, ওকে বিরক্ত করবো না। ‘
আজ কখন যে তাকে তোলা হল, আমি বুঝতেই পারিনি,
যখন বুঝতে পারলাম ফাঁকা ডালটা কেন কে জানে আমার চোখে জল এনে দিল।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top