৩৩ বছর ধরে সাবান খেয়েই বেঁচে আছেন ময়মনসিংহের আবদুল করিম – সিদ্ধার্থ সিংহ

 

[post-views]

 

[printfriendly]

 

থাকেন বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার দত্তপুর গ্রামে। জন্মেছেন ১৯৮৭ সালে। নাম— আবদুল করিম। আর জন্মের পর থেকেই, মানে গত ৩৩ বছর ধরেই কাপড় কাঁচা বা গায়ে মাখার সাবান খেয়ে আসছেন তিনি! প্রত্যেক দিন তাঁর খাদ্যের তালিকায় অন্তত সাতটা করে সাবান‌ তাঁর চাই-ই চাই।

মানুষ যেখানে সাবানের ফেনা মুখে গেলেই ওয়াক থু করেন। কম করেও মুখে দু’-তিন বার জল নিয়ে কুলকুচি করেন। সেখানে আবদুল করিমের প্রিয় খাবারই হল সাবান। খুব ছোটবেলায় তাঁর মা যখন তাঁকে সাবান দিয়ে স্নান করাতেন‌, তখনই তাঁর ভাল লেগে যায় সাবানের গন্ধ। সে সময় শুধুমাত্র সাবানের গন্ধ ভাল লেগেছিল দেখেই, তিনি মায়ের চোখ এড়িয়ে সাবানের ফেনা খেতে শুরু করেন।

তার পর একদিন নিজের ইচ্ছেতেই সাবান-কেস থেকে টুক করে চুপিচুপি সাবান তুলে তিনি তা লুকিয়ে লুকিয়ে খান। সে দিন সাবান খেয়ে তাঁর এতটাই ভাল লেগে গিয়েছিল যে, তাঁর আর অন্য কোনও খাবার মুখেই রোচে না। ফলে প্রতিদিনই একটু একটু করে বেড়েই চলে তাঁর সাবান খাওয়ার প্রবণতা।

আগে সারা দিনে অর্ধেকটা সাবান হলেই তাঁর চলে যেত, এখন দিনে লাগে অন্তত সাতটা। তবে ব্র্যান্ডেড সাবান ছাড়া তিনি সচরাচর খান না। কানুরামপুর বাসস্ট্যান্ডে ছোট একটি খাবারের দোকান আছে তাঁর। ওই দোকানে বসেই সাবান খান তিনি। তবে তিনি সাবান খান স্নান করার আগে। তিনি যে বহু‌ দিন ধরেই সাবান খান, এলাকার সবাই তা জানেন। আর এই সাবান‌ সাবান খাওয়ার সুবাদেই আবদুল করিম সবার কাছে অতি পরিচিত।

তবে যাঁরা তাঁকে চেনেন না, জানেন না, তাঁর সাবান খাওয়ার এই দৃশ্য দেখে একেবারে অবাক হয়ে যান। তাঁর স্ত্রী আনোয়ারা বেগমের বাপের বাড়ি জামালপুরে। আবদুল করিম বেশ কিছু দিন  সেখানেই ছিলেন। এখন নিজের বাড়ির কাছেই খাবারের একটি ছোট্ট দোকান দিয়েছেন। ওখান থেকে যা রোজগার হয় সেটা দিয়েই তিনি সংসার চালান।

তাঁর স্ত্রী বলেন, প্রথম প্রথম বিপদ হবে এই আশঙ্কায় সাবান না খাওয়ার জন্য ওকে বলতাম। ডাক্তারও ওকে সাবান খেতে নিষেধ করেছিলেন, কিন্তু কার নিষেধ কে শোনে! তিনি সাবান খাওয়া বন্ধ করেননি। এখন নিজেই বলেন, যত দিন বাঁচবেন তত দিনই নাকি তিনি সাবান খাওয়া চালিয়ে যাবেন। এখন এটাই তাঁর সব চেয়ে প্রিয় খাবার।

আবদুল করিমের ২ ছেলে আল-মামুন, আল-মাসুদ আর এক মেয়ের নাম শাহানা। তারা অবশ‌্য তাদের বাবার এই সাবান‌ খাওয়ার মধ্যে কোনও অস্বাভাবিকতা দেখতে পাচ্ছে না।তাঁর দোকানের পাশের চা বিক্রেতা নূরজাহান বলেন, ঘটনাটি নিজের চোখে না দেখলে আমি বিশ্বাসই করতাম না।

আবদুল করিম নিজে অবশ্য‌ স্বীকার করেছেন, সাবান না খেলে তাঁর দিন ভাল কাটে না। পেটও পরিষ্কার হয় না। মোট কথা তিনি শান্তি পান না। প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যায় একটি বিখ্যাত ব্র্যান্ডের সাবান-সহ বিভিন্ন কোম্পানির সাবান খান তিনি। সাবান না হলে নাকি তাঁর একদম চলে না।

সিদ্ধার্থ সিংহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top