ক্ষুদেবার্তা – রায়হান আজিজ
ক্ষুদেবার্তা

ক্ষুদেবার্তা – রায়হান আজিজ

  • Post category:গল্প
  • Post comments:0 Comments
  • Post last modified:December 13, 2020
  • Reading time:1 mins read

 

শাহেদকে জব্দ করতে না পারলে বোধ হয় পেটের ভাত হজম হয়না বনানীর । ক্লাস কিংবা মাঠ, পুরোটা ক্যাম্পাস জুড়েই শাহেদের পেছনে আঠার মত লেগে থাকে মেয়েটি । 

শাহেদ রহমান খুবই ইন্ট্রোভার্ট আর অন্যদিকে বনানী রায় একটু বেশিই ডানপিটে । বনানী প্রায়ই শাহেদের পাশের সিটটায় বসে পড়ে । কখনও ওর খাতায় নিজের নামটা লিখে দেয় । 

মুখে কপট বাধা দিলেও বনানীর এসব কাণ্ডকারখানা বেশ উপভোগ করে শাহেদ । 

এভাবেই হাসি আনন্দে দিন কেটে যাচ্ছিল ওদের । একদিন অফ পিরিয়ডে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিল শাহেদ । হঠাৎেই দলবল নিয়ে হাজির বনানী । শাহেদকে দেখেই ওর মুখের সামনে দুই আঙ্গুলে তুড়ি বাজাল । এতে বরং বেশ খুশিই হয়েছিল শাহেদ । কিন্তু গোল বাঁধাল ওর বন্ধু কায়সার । 

”ফালতু মেয়ে কোথাকার! আর কখনও ওকে বিরক্ত করবেনা ।”

”খবরদার কায়সার! মেয়েদেরকে খাট করে কোনও কথা বলবিনা । তুই আমার বন্ধু, একথা ভাবতেই লজ্জা লাগছে ।” ক্ষোভ ঝরে পরে শাহেদের কণ্ঠে । 

কোন ফাঁকে যে বনানী লজ্জায় মাথাটা নিচু করে চলে গেল, তা শাহেদের নজরে পড়লনা । 

এরপর থেকে বেশ কয়েকদিন যাবত ক্যাম্পাসে আসছেনা বনানী । ওর কাছের কয়েকজন বান্ধবীর কাছ থেকে জানা গেল ওর খুব জ্বর । 

বেশ অপরাধবোধে ভুগছে শাহেদ, যদিও ভুলটা করেছে কায়সার । শাহেদ বনানীকে একটা টেক্সট করল, “সেদিন কায়সারের অমন ব্যবহারের জন্য সরি । আমি ওর হয়ে মাফ চাইছি । আমাকে বন্ধু ভেবে ক্ষমা করে দিও ।”

মেসেজটা পাবার দুদিন আগেই গত হয়েছে বনানী । শাহেদের মনের ক্ষতটা কখনওই সারবেনা । কায়সারের মত মানুষেরা কি কখনও মেয়েদেরকে সম্মান করতে শিখবে?

রায়হান আজিজ

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply