সেদিন  – অভিষেক সাহা
অভিষেক সাহা

সেদিন – অভিষেক সাহা

 

” বাবা তোমার এই পাগলামি এবার বন্ধ কর প্লিজ।কাল আমার অফিসের বস আর দু’জন কলিগ আমাদের ফ্ল্যাটে ডিনারে আসছেন। তোমার বৌমা কিন্তু ভীষণ আপসেট হয়ে পড়েছে !” রাগে গজগজ করতে করতে কথাগুলো বলল তুহিন।

” আমি আবার কী পাগলামো করলাম! আর বৌমা-ই বা আপসেট হল কেনও? আমি তো কিছুই বুঝতে পারছি না !” অবাক হয়ে বললেন কুমুদবাবু। তুহিনের বাবা।

” কিছু মনে করবেন না বাবা। আড়াল থেকে কথা শোনাটা ঠিক নয় জানি, কিন্তু এতে তো আপনার ছেলের প্রেস্টিজ নষ্ট হবে।সেটা ভেবেই না হয় করুন। আমি তো ফেলে দিতে বলছি না। শুধু ড্রয়িংরুম থেকে সরিয়ে আপনার আর মা-র বেডরুমে রাখুন তাহলেই হবে।” পর্দা সরিয়ে ঘরে ঢুকে মিনতি করে বলল ঋতা। তুহিনের বউ।

” কী সরাতে বলছ তুমি। স্পষ্ট করে বল।” কুমুদবাবু জানতে চাইলেন।
” ওই যে তোমার ওই দু’টো শ্যাওলা পড়া থান ইঁট। যেটা তুমি আমাদের পুরোনো বাড়ি থেকে এনে এই নতুন দু’হাজার স্কোয়ার ফিটের ফ্ল্যাটের ড্রয়িং রুমে সাজিয়ে রেখেছ। বসকে কী উত্তর দেব বলত?” তুহিন বিরক্ত হয়ে বলল ।

” ও এই ব্যাপার। আমি তো ভাবলাম কী না কী। যেটা সত্যি সেটাই বলবে ।” কুমুদবাবু শান্তভাবে বললেন।

” কী সত্যি বলবে বাবা। এই ইঁট দু’টো আপনাদের আগের সেই প্লাস্টার ভাঙা শ্যাওলা ধরা একতলা বাড়ির। যেখানে দু’টো ঘরে সাতটা মানুষ ঠাসাঠাসি করে থাকতেন।প্রিভেসি বলে কোন শব্দ ছিল না। তাতে কী আপনার ইঞ্জিনিয়ার ছেলের সম্মান বাড়বে ?” ঋতা ক্ষোভ সংযত করে জিজ্ঞেস করল।
কুমুদবাবু পড়ন্ত বিকেলের আকাশের দিকে ফ্ল্যাটের খোলা জানলা দিয়ে তাকিয়ে বললেন ” ওনাদের বলবে ,এই ইঁটগুলো সেদিন ছিল বলেই আজ আমরা এখানে আসতে পেরেছি।”

অভিষেক সাহা

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply