পৃথিবীর সব থেকে কমবয়সী অধ্যাপক  – সিদ্ধার্থ সিংহ
বিশ্বখ্যাত হার্ভার্ড

পৃথিবীর সব থেকে কমবয়সী অধ্যাপক – সিদ্ধার্থ সিংহ

 

নাম সুবর্ণ আইজ্যাক বারী।‌ বয়স মাত্র সাড়ে আট বছর। বাংলাদেশের বংশোদ্ভূত এই মেধাবী বালক অঙ্ক এবং পদার্থবিজ্ঞান নিয়ে তাঁর অসামান্য কাজের জন্য গোটা পৃথিবীকে একেবারে চমকে দিয়েছেন। ইতিমধ্যে এই বালক ’বিস্ময় বালক’ হিসেবে যথেষ্ট খ্যাতিও কুড়িয়েছেন।

২০১২ সালের ৯ এপ্রিল এই বালক নিউইয়র্কে জন্ম গ্রহন করেন এবং অল্প বয়স থেকেই সে তাঁর মেধার পরিচয় দিতে থাকেন।

অঙ্ক নিয়ে বিশ্লেষণ, পদার্থবিজ্ঞানের ব্যাখ্যা এবং সন্ত্রাসবিরোধী প্রচারে তাঁর নিজের লেখা ’দ্য লাভ’ বইটির জন্য তিনি গোটা পৃথিবীর কাছে শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে বিশেষ পরিচিতি লাভ করেছেন।

এই মহান কীর্তি তাঁকে পৌঁছে দিয়েছে এক ভিন্ন উচ্চতায়। বিশ্বখ্যাত হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক হিসেবে তিনি এই স্বীকৃতি পেয়েছেন। স্বীকৃতি পেয়েছেন বিশ্বের সব চেয়ে কম বয়সী অধ্যাপক হিসেবেও।

সকল নিউইয়র্কবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে সম্মাননা জানিয়ে নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো বলেছেন, ’সুবর্ণ এমন একজন ব্যক্তি, যিনি খুব অল্প বয়সেই বিশ্বে ইতিবাচক পার্থক্য তৈরি করেছেন। গণিত ও পদার্থবিজ্ঞানে তাঁর অবদান প্রশংসার যোগ্য।’

একজন বিজ্ঞানী হিসেবে বিশ্বের বর্তমান ঘটনা সম্পর্কে তাঁর বিস্ময়কর সচেতনতা এবং বিশ্ব শান্তি প্রচারের জন্য সেই সচেতনতাকে ব্যবহার করার ইচ্ছা আমাকে মুগ্ধ করেছে।’

কুমো আরও বলেন, ‘তাঁর এই অসামান্য কাজের জন্য নিউইয়র্কের পক্ষে তাঁকে সম্মানিত করতে পেরে আমি গর্বিত।’

সুবর্ণকে দেওয়া সম্মাননার স্বীকৃতিপত্রে তিনি লিখেছেন, সব নিউইয়র্কবাসীর পক্ষ থেকে আমি আপনার প্রশংসা করছি। কারণ, ’দ্য লাভ’ বইটির মধ্যে দিয়ে আপনি সব ধর্মের মধ্যে সম্প্রীতি এবং সহনশীলতা জাগানোর বার্তা দিয়েছেন।’

২০১৮ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে স্বীকৃতি দেয় বিজ্ঞানী হিসেবে। নোবেল বিজয়ী কৈলাশ সত্যার্থী তাঁকে দিল্লিতে ’গ্লোবাল চাইল্ড প্রডিজি অ্যাওয়ার্ড’ দেন বিজ্ঞানী হিসেবে। পদার্থবিজ্ঞানী হিসেবে সুবর্ণকে ভিজিটিং অধ্যাপক পদে নিয়োগ দিয়েছে মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয়।

সমগ্র পৃথিবীতে তাঁর খ্যাতি ছড়িয়ে পড়তে থাকে তাঁর পিএইচডি লেভেলের গণিত বিষয়, পদার্থবিজ্ঞান এবং রসায়ন বিষয়ের বিভিন্ন ধরনের জটিল সব সমস্যাগুলোর সমাধান করে দেওয়ার কারণে।

তাঁর অভিভাবকরা জানিয়েছেন, যিনি নিউইয়র্কের বর্তমান সময়ের গভর্নর সেই অ্যান্ড্রু ক্যুমো একটি প্রতিনিধি দল মারফত তাঁর বিশেষ এই সম্মাননার স্বীকৃতিপত্রটি তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছেন। তাঁরা সুবর্ণ আইজ্যাক বারীকে গভর্নরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার জন্যও আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

আপনার মতামতের জন্য 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply