২১ এর কবিতা ২২.০১.২০২১

story and article
ভূত প্রেত সংক্রান্ত হ য ব র ল
মহীতোষ গায়েন

একটি নদী,একটি নারী,একলা পুরুষ
একটি ফুল,একটি সন্ধ্যা,একটি স্বপ্ন,
কাকে চাই,কাকে দেখছি,বৃষ্টি আসবে…
উঠলো ঝড়,পাতা পড়ছে,হরিবোল হরি।

সূর্য উঠেছে,সূর্য হাসছে,সূর্য দেখছে,সূর্য
নিভবে,কিসের ভয়,ভয় কিসের,মিছিল
আসছে,ওরে ও ময়না,কিসের ভাবনা,
কারা আসছে,কারা যাচ্ছে,হিসাব হয় না।

তারা বেশ আছে,ভয়হীন চোখ,রক্তজবা,
খুব বাহাদুরি,আগে তো দেখেনি,পাজী
বদমাশ,বাবা বড়বাবু,লালপাড় শাড়ি,
গা-ছমছম,রাত গাঢ় হয়,মাতালের বেশ।

কবিতায় খুন,গল্পে আগুন,শিরোনামহীন
অগ্নিমন্ত্র,পুরোহিত আসে,সমাধান কই,
এ-পাড়ায় ছুটি,ও-পাড়ায় পুজো,হাটবার
আসে,অসময় যায়,সুদিন ফেরে,ভূত সঙ্গীত।

আরে মহাশয়,কিসে অত ভয়,গাব জাল দিতে
শীবের গাজন,গাঁজাখোর হাসে,হা-ডু-ডুর মাঠ,
প্রেতসঙ্গীত,পরিদের নাচ,মজলিসে বোম,আরে
বাপ,কবিতা হাসে,ভূত প্রেত আসে চুপ করে থাক।

Mahitosh Gayen

 

 

চিত্ত রোদন 

   এম জাকারিয়া আহমেদ

তোর লাগিয়া অন্তর কান্দে
কান্দে আমার চোক্ষু,
বুঝলিনারে মনের জ্বালা
বুঝলিনারে দুঃখ !
চোক্ষু কান্দে নিরবধী
মনে বহে ঢেউ,
জানে শুধু অন্তর্যামী
জানে নাতো কেউ !
সুখ গুলো সব তোমার থাকুক
দুঃখ গুলো সব আমার,
দুঃখের জন্য এই হৃদয়ে
গড়েছি খামার !
হাসি-খুশি সুখ গুলো
বসৎ করোক তোমার বাড়ী,
দুঃখ গুলো সব চলে যাক
তোমায় দিয়ে আড়ি !
ফুল চন্দন ফুটুক তোমার
সকাল দুঁপুর সাঁঝে,
দোয়া করি সুখে থেকো
এই ধরণী মাঝে !!!

mjakariaahmed

 

 

খেলতে চাই
রতন বসাক

সকাল থেকে পড়ে যাচ্ছি
মাগো একটু খেলতে চাই,
তোর কথাতো সবই মানি
মনটা আমার ভালো নাই।

এতো পড়ার চাপে কেমন
মাথাটা আজ ঘুরছে ওই,
পড়ার পরে লিখতে হচ্ছে
আমার খেলার সময় কই?

মাঠে গিয়ে খেলতে পেলে
মনটা ভালো থাকবে মা,
পড়ার পরে খেলার জন্য
বাবার আদেশ নিতে যা।

একটু খেলে আবার আমি
ফিরে এসেই থাকবো ঘর,
যেতে দে না এখন আমায়
দু’হাত জুড়েই করছি গড়।

সব সময়ে পড়তে থাকলে
শুনেছি রোগ অনেক হয়,
শরীরটা না থাকলে ভালো
পারবো কি আর বিশ্ব জয়?

Ratan Basak

 



জনতার তবক

ডি কে পাল

আমি তোমায় খুব চিনেছি
তাই করি না পরোয়া,
ডিগবাজি আর ধান্দাবাজির
শিক্ষা তোমার ঘরোয়া।

ফেতনা-ফ্যাসাদ,ঝুট- ঝামেলা
দেয় তোমাকে অক্সিজেন,
তোমার যারা সঙ্গী সাথী
তোমার মত কক্সি মেন।

দেশের যত শান্তিপ্রিয়
ভাগ্যহত জনতা,
অশান্তিতে আর কতকাল?
মানছে না যে মন-ও তা।

তাইতো বলি থাকতে সময়
শুদ্ধাচারের সবক নে,
নইলে যাবি মা’য়ের ভোগে
আমজনতার তবক এ।

Dilip paul

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *