বাঘের সামনে পরেও নিজের বুদ্ধির জোরে নির্ঘাত মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচল তরুণী – সিদ্ধার্থ সিংহ

বাঘের সামনে পরেও নিজের বুদ্ধির জোরে

দুটি বাচ্চা মেয়ে কিছুদিন আগে বনের ভেতরে গিয়ে আটকে পড়ে। তার মধ্যে একটি মেয়ে বনের ভেতরে থাকা ছোট্ট একটি জল ভর্তি খালে পা পিছলে পড়ে যায়। পড়ে গিয়ে সেই মেয়েটির সারা গায়ে কাদা লেগে যায়।

ঠিক সেই মুহূর্তেই হঠাৎ করে তার সামনে চলে আসে একটি বাঘ। ভয় পেয়ে একটি মেয়ে সেই জলাশয় লাগোয়া প্রকাণ্ড বটগাছটায় তরতর করে উঠে পড়ে।

কিন্তু খালে পড়ে থাকা মেয়েটি গাছে ওঠার আগেই সেই বাঘটি চলে আসে তার একেবারে গায়ের কাছে।

মেয়েটি বিন্দুমাত্র ভয় না পেয়ে একদম স্থির হয়ে সেই খালেই বসে থাকে। বাঘটি তার আরও কাছে এসে তার গায়ে নাক ঠেকিয়ে শুঁকতে থাকে।

পাঁকের গন্ধ পেয়ে বাঘটির কী মনে হয়েছিল কে জানে! কিছুক্ষণ পরে বাঘটি ফিরে যাওয়ার জন্যে পেছন ফিরতেই, শুরু হয় ঝমঝম করে বৃষ্টি।

তুমুল বৃষ্টির ছাঁটে কাদা ধুয়ে মেয়েটির আসল চেহারা বেরিয়ে পড়ে।

কিছুটা গিয়ে বাঘ যখন পেছন ফিরে বুঝতে পারে খালে পড়ে থাকা পাঁকের গন্ধ মাখা বস্তুটি আসলে একজন মানুষ, বাঘ সেই মুহূর্তে ছুটে এসে লাফিয়ে পড়ে মেয়েটির উপরে।

বাঘটি তার গায়ে লাফিয়ে পড়ার এক মুহূর্ত আগেই মাথার ওপর ঝুলে থাকা ওই বটগাছটার একটি ঝুড়ি ধরে চোখের পলকে ঝপ করে উঠে যায় উপরে।

এবং বাঘের কবলে পড়েও শুধুমাত্র নিজের উপস্থিত বুদ্ধির জোরে নির্ঘাত মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে ফেরে সেই মেয়েটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *