Dr. Mayuri Mitra

 51 total views

দিললাগি দিলীপকুমার    –  ড. ময়ূরী মিত্র

 

দুপুরবেলা  |  প্রকান্ড জানলা  দিয়ে বৃষ্টি দেখছিলাম | মায়ের  বাড়ির জানলাগুলো এত বড় আর সংখ্যায় এত বেশি যে ভ্রম হয়   ঘরেই গড়াগড়ি খাচ্ছে  বৃষ্টি  | অথবা চাঁদ সূর্য | ঘরে একবার ঢোকার অপেক্ষা শুধু আমার | মনে  হতে লাগে ,এই রে এবার আকাশটা  ঘরে ঢুকতে থাকবে  আর ঢুকেই সাপটাবে আমার মস্তানী  শরীর | আকাশের বর্ষণবন্যায় যে বয়ে চলব আমি।            আজ কেন যেন আকাশের এই খামচাখামচি সহ্য হচ্ছিল না | —জানলাগুলোকে এমন করে অগ্রাহ্য করে ঘরে ঢোকার দরকার কী তোর ? ক্ষেপা কুত্তার মত চেঁচালাম |  —-” ওই বৃষ্টি  ! ওইইই –কথা কানে যাচ্ছে না | ঝরতে ঝরতে বড় যে হয়েই চলেছিস তুই ! তোরই বা এত বাড় কবে বাড়লো রে  আকাশ ! নিজেকে আর কত  ছড়াবি ?   শেষমেশ হাতের বাইরেই চলে যাবি নাকি আমার  অখাদ্য প্রিয়তম ?  আমা হতে দূরস্থিত হয়ে যাবি ?  তবে রে !  বাঁচতে দেব ভেবেছিস তোকে ? “
             দৌড়ে গেলাম দোতলার সিঁড়িতে |  মুখ গুঁজি একখন্ড কাঁচের জানলায় | কাঁচ কবেই খুলে গ্যাছে | ফাঁকা  ফুটোতেই  ফুলবড়ি নাক  সেট করলাম  | দু একটুকরো পাতা ডালপালা আঘাত হানল মোর  প্যাঁচা মুখে | তবুও দেখতে লাগল প্যাঁচানি | দেখতে লাগল কাঁচের খুপরিতে  টুকরো হওয়া  আকাশকে !
         দেখতে লাগল  করতলের একটুপ  এক। বৃষ্টিকে   |  দেখতে দেখতেই গা পিঠ ভারী হল।| চোখ ফোখ  সব  ভরে এল একেবারে | মন খুলল ঝপাং | আকাশ এবার  এট্টু ছোট্ট   | এবার প্যাঁচানী জাপটে  ধরেছে তাকে |  বড় সুখ ! বড় সুখ ! কী সুখ ! কী সুখ !  এতক্ষণে  পেয়েছে  সে পছন্দের  পুরুষ |  হ্যাঁ —-দুহাতের মুঠোয় চটকানো আকাশপুরুষ |  আধখোলা সুঠাম শরীর ! তবে তার  সবটা  প্যাঁচানীর বটেক  |
             নাকের ডগায়  আজ আমার বড়  ঘাম রে  ! তর সইছে না ! ওহ আজি হারাল রুমালটা !
                    নাহ ! পুরুষডা যেন কাবলীছোলা |
শুদ্ধু দাঁতের গোড়ায় জ্বালা দিয়া পালায় |

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *