Shampa Saha

 228 total views

#সন্তান_আসলে_কি?
#শম্পা_সাহা

ইনভেস্টমেন্ট।সন্তান আসলে আমাদের ইনভেস্টমেন্ট।কি আকাশ থেকে পড়লেন?অবাক লাগছে?মনে হচ্ছে আমি কি ছোট মনের পরিচয় দিচ্ছি?আচ্ছা এক্ষুনি বুঝিয়ে দিচ্ছি যে সন্তান আসলে আমাদের দেশে এক ধরনের ইনভেস্টমেন্ট যেমন টাকা,পয়সা,মিউচুয়াল ফান্ড,শেয়ার, জমি ইত‍্যাদি ইত‍্যাদি।

আগেই গালাগাল না দিয়ে একবার আমি কি বলছি শুনুন।তারপর বিচার করবেন আমি ভুল না ঠিক, আর ভুল হলেও কতটা?

আচ্ছা ছোটবেলা থেকেই কেউ আপনাকে বলেনি, মানে আপনার বাবা বা মা বা আপনার আত্মীয় স্বজনেরা?
-ওই তো দেখবে!
শুনেছেন তো?সব্বাই শুনেছেন?এবং বড় হয়ে যাওয়া ছেলে মেয়েদের সবাইকেই শুনতে হয়
-তুই/তোরা না দেখলে কে দেখবে?
এমনকি আমাদের দেশে বাবা মাকে না দেখলে শাস্তি, জেল,হাজতবাস পর্যন্ত হয়।যদিও সেটা ছেলেদের জন‍্য তোলা । সম্পত্তির ভাগ ছেলে মেয়ে দুজনের আর কর্তব্য,অবহেলায় শাস্তি একা ছেলের প্রাপ্য!কি কিউট না?

এটা তো সত‍্যি কথা, সন্তানকে ছোটবেলায় বাবা মা জন্ম দিয়েছেন,পড়ালেখা শিখিয়ে উপযুক্ত করেছেন, তাদের চাকরি বাকরি বা রোজগারের উপযুক্ত তো বাবা মাই করেছেন।তাহলে ছেলেমেয়েরা বড় হয়ে কেন দেখবে না?জন্ম বাবা মা ছাড়া কে দিত?

কে বলেছে?আমার প্রশ্ন জন্ম দিতে কে বলেছে?আমরা বলেছিলাম আমাদের জন্ম দাও?বাবা মায়েরা নিজেদের বংশ রক্ষার জন‍্য জন্ম দিলেন,তারপর তাকে স্নেহে মানুষ করলেন ।তাহলে তারা কি উল্টে তাদের করা দায়িত্বের বিনিময়ে এটা পেতে পারেন না?নিশ্চয়ই পারেন!ঠিক যেমন কুড়ি হাজার ইনভেস্ট করে তিরিশ হাজার সুদমূল আপনি তো আশা করতেই পারেন।এতে আশ্চর্যের কিছু নেই।এটাই তো ব‍্যবসা!কিন্তু যখন সন্তান পালন মানে লাভের আশায় কর্ম তাহলে সেটা ইনভেস্টমেন্ট নয় কেন?

অনেকেই বলবেন বা হয়তো সবাই যে, ভালোবাসা, স্নেহ, মায়া ,মমতার কি মূল‍্য হয়?ঠিক হয় না।তাহলে নিঃস্বার্থ ভাবেই করুন।সন্তানের কানের কাছে শোনাবেন না ,
-তোদের জন‍্য এত করেছি আর তোরা বিনিময়ে কি করলি?

প্রথম কথা সন্তান জন্ম দিয়ে আপনি কোনো মহান কাজ করেননি।কুকুর, বেড়াল, গরু, ছাগল সবাই সন্তান জন্ম দেয়।বড় করে ,স্নেহ দিয়েই, যতটা তাদের বোধের মধ‍্যে পড়ে।বিনিময়ে তারা কখনোই দাবি করে না যে, ছোটবেলায় তোমাদের জন‍্য যা করেছি তার প্রতিদান দাও।দিতেই হবে ,না হলে আজকাল আদালতে যাবারও ভয় দেখানো হয়!

সন্তান জন্ম দিয়ে তাকে পৃথিবীতে এনে দুটো ভুল কাজ হয়েছে,এক পৃথিবীর জনসংখ্যা বৃদ্ধি, দ্বিতীয়ত পৃথিবী মোটেই খুব একটা সুখকর জায়গা নয়।সেখানে না জন্মালেই বা কি এমন ক্ষতি হতো?
আর আপনি নিঃস্বার্থ ভাবে সন্তানের জন্ম মোটেও দেননি।যথেষ্ট যৌনতা উপভোগ করেছেন, নিজের বংশবৃদ্ধি উদ্দেশ্যে ছিল,মা বা বাবা ডাক শুনতে চেয়েছিলেন, একাকীত্ব কাটাতে চেয়েছিলেন, সকলের সামনে এক পূর্ণ পরিবার চেয়েছিলেন।

কি বুঝলেন? সন্তানের ভালো চেয়ে তাকে পৃথিবীতে আনেননি বা আনার আগে তার মতামত নিয়েও আনেননি।তাকে লালনপালনও তার মতামত নিয়ে করেননি উল্টে পরবর্তীতে তার ঘাড়ে নিজেদের চাপিয়ে দিচ্ছেন।তাদের তো আপনাদের বোঝা মনে হবেই।

আপনি ডাক্তার হতে পারেননি, চান সন্তান ডাক্তার হোক।আপনি সরকারি চাকরি পাননি, চান সন্তান সরকারি চাকরি পাক।আপনি প্রেম পছন্দ করেন না,দিলেন মেয়ের প্রেমটা ভেঙে।আপনি রেগে আপনার মা বাবার সঙ্গে খারাপ ব‍্যবহার করেন,চান আপনার সন্তান আপনার সঙ্গে ভালো ব‍্যবহার করবে!এই চাহিদা গুলো কি খুব ঠিকঠাক?

তাহলেও একটা প্রশ্ন রয়েই যায়।তাহলে বাবা মাকে দেখবে কে?সন্তানই দেখবে।কিন্তু ছোট বেলা থেকেই তার ঘাড়ে চাপবেন বলে ভয় দেখাবেন না,কথায় কথায় শোনাবেন না
-তোদের জন‍্য কত কি করছি ,বা
-তোদের জন্ম দিয়েছি
ভালোবাসুন।আপনার দায়িত্ব নিজে এমন ভাবে পালন করুন যাতে সন্তান দায়িত্ব পালন শেখে।দেখবেন তখন আর আপনাকে থানায় ছেলের নামে অভিযোগ জানাতে যেতে হবে না।

আর যদি তর্কের খাতিরে ধরেও নি যে আপনি একেবারে ঠিক,তবু সে আপনাকে দেখে না ,করে না।দোষারোপ করবেন না।মনে রাখবেন সন্তান আপনার ইনভেস্টমেন্ট নয়,আপনার ভালোবাসা, আপনার দায়িত্ব ,আপনার কর্তব্য।আপনি আপনারটা করুন।তার কর্তব্য তার ওপরে ছেড়েদিন।করলে ভালো না করলেও দাবি নেই।আর যদি দাবি করেন তো মেনে নিন সন্তান আপনার ইনভেস্টমেন্ট বাকি আর কিছুই না।

©®

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *